Find the latest bookmaker offers available across all uk gambling sites www.bets.zone Read the reviews and compare sites to quickly discover the perfect account for you.
রবিবার , জুলাই ২৩ ২০১৭
সাম্প্রতিক

গাজনী হচ্ছে নবতম জাতীয় উদ্যান !

নিজস্ব প্রতিবেদক : শেরপুরের ঝিনাইগাতী উপজেলার সীমান্তবর্তী আদিবাসী অধ্যুসিত অঞ্চল রাংটিয়া, বড় গাজনী, ছোট গাজনী এবং তাওয়াকুচা সরকারী বনাঞ্চল ঘিরে ১ হাজার হেক্টর জমি নিয়ে নতুন জাতীয় উদ্যান বা ন্যাশনাল পার্ক শ্রীগ্রই হতে যাচ্ছে বলে জানিয়েছে একটি জাতীয় দৈনিক পত্রিকা । গতকাল ১৮ জুলাই, মঙ্গলবার জাতীয় দৈনিক ‘সংবাদ’ পত্রিকায় এ বিষয়ে বলা হয়েছে যে, অতি শ্রীগ্রই গাজনী জাতীয় উদ্যান প্রকল্পের কাজ শুরু হবে ।

পত্রিকাটির দেশ বিভাগে ৫ম পাতায় ‘নবতম জাতীয় উদ্যাণ গজনী – শ্রীঘই প্রকল্পের কাজ শুরু’ শিরোনামে শেরপুরের সীমান্তবর্তী ঝিনাইগাতী উপজেলার সরকারি পাহাড়ি বনাঞ্চল ঘিরে ১ হাজার হেক্টর জমি নিয়ে রাংটিয়া, গজনী ও তাওয়াকুচা মৌজায় হতে যাচ্ছে ন্যাশনাল পার্ক। বনবিভাগ শীঘ্রই এই প্রকল্পের কাজ শুরু করবে বলে প্রতিবেদনে উল্ল্যেখ করা হয় । গত ডিসেম্বরে ঝিনাইগাতীর রাংটিয়া রেঞ্জের রেঞ্জ কর্মকর্তা আবদুল্লাহ আল মামুন  বাংলাদেশের উত্তরাঞ্চলের বৃহত্তর ময়মনসিংহ জেলার শেরপুরের ঝিনাইগাতী গারো পাহাড়ের সরকারি বনাঞ্চলের গজনীতে মনোরম পরিবেশ দৃষ্টি আকর্ষণের লক্ষ্যে ন্যাশনাল পার্ক নির্মাণের প্রস্তাব পাঠান বনবিভাগের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট । তার প্রস্তাব অনুযায়ী বনবিভাগ কয়েক দফায় সরেজমিনে পরিদর্শন করে ন্যাশনাল পার্ক নির্মাণের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেন বলে জানাগেছে ।

রেঞ্জ কর্মকর্তা আবদুল্লাহ আল মামুনের ভাষ্যমতে তার কর্মস্থলের অধীনে ৮ হাজার ৭৭৯ একর বনভূমির বনাঞ্চল ও বনজ সম্পদ ও তার অধীনস্থ ৩টি বিট কর্মকর্তা ও বনরক্ষীদের নিয়ে প্রতি রাতেই সরকারি বনাঞ্চল রক্ষায় দায়িত্ব পালন করে আসছেন ।  তিনি আরো বলেন, ঝিনাইগাতীর গজনীতে ন্যাশনাল পার্ক স্থাপন হলে সরকার প্রতি বছর লাখ লাখ টাকার রাজস্ব পাবে। এই ন্যাশনাল পার্কে দেশি-বিদেশি বিভিন্ন জাতের হারিয়ে যাওয়া ফলজ, বনজ ও ঔষধি গাছসহ বিভিন্ন প্রজাতির পশুপাখি থাকবে। এছাড়াও শিশুদের জন্য চিত্ত বিনোদন, পর্যটকদের জন্য আকর্ষণীয় রেস্ট হাউজ, শিক্ষার্থীদের জন্য থাকবে শিক্ষামূলক বিনোদনকেন্দ্রসহ বিভিন্ন আকর্ষণীয় মনোমুগ্ধকর দৃশ্য ।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ট্রাইবাল ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশন (টিডব্লিউএ) ঝিনাইগাতী উপজেলা শাখার চেয়ারম্যান নবেশ খকসী আচিক নিউজকে জানান, ‘আদিবাসী অধ্যুসিত অঞ্চল গাজনী রাংটিয়ায় জাতীয় উদ্যান তৈরি হলে আমাদের আদিবাসীদের দৈনন্নদিন জীবনযাপনে বাধার সৃষ্টি করবে , এটা কোনভাবেই করতে দেওয়া যাবেনা । জাতীয় উদ্যানের নামে আদিবাসীদের বসতভিটা থেকে উচ্ছেদের ষড়যন্ত্র আমরা সকলে মিলে প্রতিহত করবো । এমনিতেই ১৯৯৩ সালে তৎকালীন শেরপুরের জেলা প্রশাসক আতাউর রহমান মজুমদার গাজনী কে গজনী অবকাশ কেন্দ্র নির্মাণ করে । এই অবকাশ কেন্দ্র নির্মানের ফলে অনেক আদিবাসীদেরকে বসতভিটা থেকে উচ্ছেদ হতে হয়েছে । এলাকায় নিরাপত্তাহীনতা সৃষ্টি হয়েছে । যে কেউই যখন তখন আদিবাসীদের বসতবাড়ীতে ঢুকে পড়ে । এমনকি বনে কোন ক্রাইম হলে সেখানে আদিবাসীদের জরিত করা হচ্ছে । এমনাবস্থায় জাতীয় উদ্যান ঘোষিত হলে এসব আরো বৃদ্ধি পাবে ।

মতামত দিন

বিস্তারিত

অপহৃত আদিবাসী ছাত্রী উদ্ধার হয়নি এক মাসেও

আচিক নিউজ ডেস্ক : সুনামগঞ্জের ধরমপাশা উপজেলার এক হাজং আদিবাসী ছাত্রীকে অপহরণের এক মাস পার হয়ে গেলেও এখনো উদ্ধার করতে পারেনি পুলিশ । অপহরণের অভিযোগে প্রায় মাসখানেক আগে মামলা হলেও মেয়েটি এখনো উদ্ধার হয়নি । এ ঘটনায় আজিম উদ্দিন (২৩) ও মাঈন উদ্দিন (১৮) নামে দুজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ ।

এজাহার সুত্রে জানাযায়, ভোলাগঞ্জ সার্বজনীন উচ্চ বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেনিতে পড়ুয়া হাজং আদিবাসী মেয়েটি স্কুলে যাওয়া-আসার পথে তাকে প্রায় উত্ত্যক্ত করতো মাঈন । গত ৮ জুন রাত ১০টার দিকে মাঈন দলবল নিয়ে মেয়েটিকে তার বাড়ী থেকে জোর করে তুলে নিয়ে যায় । রাত দেরটার দিকে পুলিশ মেয়েটিকে মাঈন উদ্দিনের বাড়ী থেকে উদ্ধার করে এবং মাইনকে আটক করে । ঐ রাতেই মেয়েটির পিতা অপহরণের অভিযোগে মামলা করেন । পরদিন আদালতে হাজির করা হলে আদালত মাইন উদ্দিনকে কারাগারে পাঠান এবং মেয়েটিকে নিজ পরিবারের জিম্মায় দেন ।

এরপর মেয়েটির বাবা ১৩ জুন মধ্যনগর থানায় আরেকটি সাধারণ ডায়েরি করেন । এতে তিনি উল্লেখ করেন, আদালত থেকে নিয়ে আসার পর মেয়েটি বাড়িতেই ছিল। কিন্তু ১১ জুন রাতে তিনি ঘুম থেকে ওঠে দেখেন মেয়ে ঘরে নেই । এরপর  থানায় সাধারণ ডায়েরি করলে পুলিশ মাঈন উদ্দিনের আরেক ভাই আজিম উদ্দিনকে গ্রেফতার করে । মেয়েটির চাচা জানান, ‘মেয়েটি নিখোঁজের পর দুইবার ফোনে যোগাযোগ করে তার বাবাকে বলেছে মামলা তুলে না নিলে তাকে অপহরণকারীরা ছাড়বে না ।  পুলিশকে বিষয়টি জানানো হয়েছে । আমরা মেয়েকে ফেরত চাই।’
মধ্যনগর থানার ওসি (তদন্ত) মো. মিজানুর রহমান জানান, বিষয়টি সর্বোচ্য গুরুত্ব দিয়ে দেখা হচ্ছে এবং মেয়েটিকে উদ্ধারে চেষ্টা চলছে ।

এদিকে অপহৃত হাজং ছাত্রীকে দ্রুত উদ্ধার ও অপহরণকারীদের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবিতে বিক্ষোভ সমাবেশ ও মানববন্ধনের ডাক দিয়েছে বাংলাদেশ হাজং ছাত্র সংগঠন (বাহাছাস) । আগামী ২১ জুলাই শুক্রবার, সকাল ১০টায় ঢাকার শাহাবাগে জাতীয় জাদুঘরের সামনে এ বিক্ষোভ সমাবেশ ও মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হবে বলে জানাগেছে ।

প্র/আ

মতামত দিন

বিস্তারিত